শীতের শুষ্কতায় পায়ে কাশফুলের স্নিগ্ধতা

0 comments

শীতকাল তো প্রায় চলেই এসেছে। ভোরের দিকে কিংবা মাঝরাতে বারান্দায় দাঁড়ালেই বাতাসে শীতের আমেজ টের পাওয়া যায়। ঘরের তাপমাত্রা এখনও কিছুটা স্বাভাবিক থাকলেও জানালা বা দরজা খুললেই হু হু করে ঠাণ্ডা বাতাস ঢুকে যায়।

 

আর শীতকাল মানেই ত্বকের একটু বাড়তি যত্ন নেয়া কারণ এই সময়ে ত্বক একটু বেশিই নাজুক হয়ে পড়ে। ঠোঁট ফেটে যায়, গালের চামড়া, পায়ের ত্বক, হাতের কনুই শুষ্ক এবং নির্জীব হয়ে পড়ে।

আমাদের আজকের আলোচনার বিষয় হলো এই শীতে পায়ের যত্নে  কিছু পরামর্শ। পায়ের পাতা, গোড়ালি এবং নখ সবকিছুর সম্পূর্ণ টিপস থাকছে এখানে।

ফুট বাথ

আগেই জেনে নেয়া যাক ফুট বাথ কী। ফুট বাথ হলো পায়ের জন্য বিশেষ এক ধরনের স্পা। কিছু উপকারী উপাদানে নির্দিষ্ট সময় ধরে পা চুবিয়ে রেখে তারপর পা ধুয়ে ফেলার নাম ফুট বাথ। এর কাজের ধরনই এমন নামকরণের কারণ।

একটি পাত্র নিন যাতে আপনার পা চুবিয়ে রাখতে পারবেন। এবার তাতে ইপসম লবণ এবং এসেনশিয়াল অয়েল নিন।

এবার লবণ এবং তেল মিশিয়ে নিন। ভালো ভাবে মিশে গেলে পরিমাণ মতো পানি নিয়ে পায়ের পাতা চুবিয়ে রাখুন গোড়ালি পর্যন্ত।

লবণে থাকা ম্যাগনেসিয়াম ত্বককে নরম ও মসৃণ হতে সাহায্য করে এবং এসেনশিয়াল অয়েলের সুঘ্রাণ পায়ের দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়া দূর করে সুন্দর ঘ্রাণ জোগায়।

পিউমিস স্টোন

পিউমিস স্টোন (বাংলায় যাকে বলা হয় ‘ঝামা পাথর’) দিয়ে প্রতিদিন গোসলের সময় আলতো করে পায়ের পাতা ঘষতে পারেন।

পিউমিস স্টোন বিভিন্ন দোকানে পাওয়া যায়। বিশেষ করে ফুটপাতে যারা মাটির জিনিস বিক্রি করেন তাদের কাছে খুঁজলেও মাটির তৈরি ফুট স্ক্রাবার পাবেন যা ঝামা পাথরের মতোই কাজ করে।

তবে ঝামা পাথরের সারফেস অপেক্ষাকৃত কম অমসৃণ হয় ফলে পায়ের পাতা তেমন একটা ক্ষতিগ্রস্ত হয় না। যেহেতু পায়ের ত্বক অনেক নরম এবং সংবেদনশীল হয়ে থাকে তাই পিউমিস স্টোন ব্যবহার করাই ভালো।

শুষ্ক অবস্থায় পায়ে কিছু না দেয়া

খুব সম্ভবত আমরা শীতকালে খুব বড়ো একটি ভুল করি আমাদের পায়ের সাথে। সেটি হচ্ছে আমাদের পা যখন প্রস্তুত নয় অর্থাৎ পা যখন শুষ্ক, তখন আমরা পায়ে লোশন, ক্রিম, তেল, গ্লিসারিন ইত্যাদি দিই।

এভাবে পায়ের ভালো কিছু করতে যেয়ে আমরা পায়ের অবস্থা আরো খারাপ করি। সাধারণত শুষ্ক ত্বকে তেল বা লোশনের মতো কিছু দেয়া উচিত নয়।

এতে করে ত্বকের উপর বিরূপ প্রভাব পড়ে। তাই গোসলের পরে পায়ে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করে এরপরে লোশন বা ক্রিম দেয়া উচিত।

সম্ভব হলে গোসলের সময়ে পায়ে একটু স্ক্রাব করে নিলে আরো ভালো ফল পাওয়া যাবে। এতে করে ত্বকের মৃত কোষগুলো উঠে যাবে। এভাবে আপনার পায়ের ত্বকের বাইরের অংশটুকু সুরক্ষিত থাকবে।

ফুট মাস্ক

বাজারে এখন অনেক ধরনের ফুট মাস্ক পাওয়া যায়। অথবা আপনি বাড়িতেও তৈরি করে নিতে পারেন বিভিন্ন ফুট মাস্ক।

তবে বাড়িতে তৈরি করলে লক্ষ্য রাখবেন সেটি যেন অবশ্যই ত্বককে যথেষ্ট আর্দ্রতা প্রদান করে। ফুট মাস্ক লাগিয়ে পায়ে মোটা কাপড়ের মোজা পরে থাকুন।

এটি করতে পারেন এক দিন অন্তর অন্তর এবং রাতে ঘুমানোর আগে। তাহলে মাস্কটি অনেক সময় ধরে আপনার পায়ে থাকবে এবং কার্যকরও হবে দ্রুতই!

আঙুলের নখের ত্বকে তেল ব্যবহার

আপনার পায়ের সুরক্ষা শুধুমাত্র পায়ের ত্বক, পায়ের পাতা এবং গোড়ালি নিয়ে নয়। পায়ের আঙুলের নখ এবং এর আশেপাশের ত্বকের প্রতিও আপনার যত্নশীল হতে হবে। পায়ের নখ সবসময় ছোটো রাখবেন।

এতে করে জুতো পরার সময় অযাচিতভাবে নখ থেঁতলে যাবে না। আবার নখ ছোটো রাখলে নখের আশেপাশের ত্বকের যত্ন নেয়া সহজ।

আপনি যদি নিয়মিত পেডিকিওর না করেন তবে সম্ভবত আপনার শরীরের সবচেয়ে কম যত্ন এবং মনোযোগ পায় আপনার পায়ের আঙুলের নখ এবং নখসংলগ্ন ত্বক। শীতকালে ত্বক শুষ্ক হওয়ার কারণে নখের পাশের চামড়া খুব সহজেই উঠে যায়।

আবার ধূলাবালির কারণে সেখানে প্রায়ই ময়লা জমে। তাই এই ত্বকে নিয়মিত নারিকেল তেল দিলে খুব কার্যকরী প্রভাব লক্ষ্য করা যায়।

তেল এই ত্বককে ব্যাক্টেরিয়ামুক্ত এবং আর্দ্র রাখে। একইসাথে পায়ের নখও শক্তিশালী হয় এবং নখ ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা কমে আসে।

বোনাস টিপস

পা ফেটে গেলে যা করতে পারেন-

  • রাতে ঘুমাতে যাবার আগে গরম পানিতে লিকুইড সাবান বা শ্যাম্পু নিয়ে ভালো মতো মেশান এবং পা চুবিয়ে রাখুন ২০ মিনিট পর্যন্ত।
  • পিউমিস স্টোন দিয়ে আলতো করে পায়ের গোড়ালি ঘষে নিন।
  • ঠাণ্ডা এবং পরিষ্কার পানিতে পা ধুয়ে ফেলুন।
  • নরম তোয়ালে দিয়ে ভালো ভাবে পা শুকিয়ে নিন।
  • অলিভ অয়েল বা ফুট ক্রিম মেখে নিন।
  • মোজা পরে নিন।

সারাদিন মুখের এবং হাতের দিকে আমরা এতটাই যত্নশীল হয়ে ব্যস্ত থাকি যে পায়ের দিকে আমাদের তেমন একটা লক্ষ্য করা হয় না।

অথচ পায়ের যত্ন নেবার প্রয়োজন হয় সবচেয়ে বেশি। কারণ পায়ের গোড়ালি ফেটে গেলে এবং সেটি অতিরিক্ত মাত্রায় পৌঁছে গেলে বড়সড় চিকিৎসার সম্মুখীন হতে হবে আপনাকে। তাই পায়ের যত্নে সচেতন হন।

বোনাস টিপসে যা যা করণীয় তার সবকিছু আপনার হাতের কাছে আছে তো? কেয়ার মি আপনাকে দিচ্ছে এই শীতে পায়ের সুরক্ষার জন্য ফুট পিল মাস্ক  ।

আরও আকর্ষণীয় শীতের সামগ্রী একদম যথাসময়ে আপনার দ্বারপ্রান্তে পেতে চোখ রাখুন কেয়ার মি-তে।

শীতের তীব্র রুক্ষ্মতায় আপনার পায়ের ত্বক থাকুক কাশফুলের মতো নরম।

Leave a comment

All blog comments are checked prior to publishing
You have successfully subscribed!
This email has been registered