১২টি মেকআপ ব্রাশ যা আপনার সাজকে পূর্ণ করবে

0 comments

মেকআপ এর প্রতি যাদের ভালোবাসা আছে, মেকআপ ব্রাশ সেট যেন তাদের জন্য একটি অপরিহার্য ব্যবহৃত জিনিস।

মেকআপ করতে বসলে একটি ব্রাশ সেট তাদের থাকা চাই-ই চাই। সব ধরনের ব্রাশ একই রকম কাজ করে না।

চোখের জন্য যে ব্রাশ আপনি ব্যবহার করছেন সেটি দিয়ে চাইলেই ব্রাশ-অন বা কনটিয়রিং করতে পারবেন না।

 যারা মেকআপ করার প্রারম্ভিক লেভেলে আছেন তাদের জন্য এই শিল্প যেন আরও বেশি রহস্যময়! নতুন হোন বা প্রফেশনাল হোন, মেকআপ প্রেমী সকলের কাছে ব্রাশ সেটের গুরুত্ব তুলে ধরতেই আজকের এই আয়োজন।

১. ফাউন্ডেশন ব্রাশ

লিকুইড ফাউন্ডেশন ব্যবহার করার জন্য মোটা এক ধরনের ব্রাশ ব্যবহৃত হয়। এই ব্রাশটি আপনার মেকআপ ব্রাশ সেটে সবচেয়ে মোটা হয়ে থাকে কারণ মুখের বিশাল অংশ জুড়ে এই ব্রাশের কারসাজি চলে।

ফাউন্ডেশন সঠিক ভাবে সারা মুখে লাগাতে হলে একটি ফাউন্ডেশন ব্রাশের জুড়ি নেই।

২. কাবুকি ব্রাশ

ফাউন্ডেশন লাগানো তো হয়ে গেলো ! এবার কি তবে ব্রোঞ্জার বা ফেস পাউডারের জন্য ব্রাশের প্রয়োজন হবে না? মেকআপ করা তো শুধু ফাউন্ডেশনেই সীমাবদ্ধ নয়।

মুখের বিভিন্ন খুঁত ঢেকে দেয়া বা ত্বককে প্রয়োজনমত একটু চাপা বা চওড়া দেখাতে বাড়তি শেডের প্রয়োজন হয়। এই শেডের কাজগুলো করতে পারেন কাবুকি ব্রাশ দিয়ে।

ফাউন্ডেশন ব্রাশের মতোই এটি আকারে চওড়া হয়ে থাকে।

৩. পাউডার ব্রাশ

ফাউন্ডেশন বা কাবুকি ব্রাশের চেয়ে অপেক্ষাকৃত একটু বেশি ঘন ফাইবার বা উল দিয়ে পাউডার ব্রাশ তৈরি করা হয়।

ব্রাশের সাহায্যে আপনি যতটুকু পাউডার মেখে উঠাতে চাইছেন তা যেন পরিমাণ ঠিক রাখে সেজন্যই এই ব্রাশ একটু ঘন ফাইবার দিয়ে তৈরি করা হয়।

ব্যানানা লুজ পাউডার বা অন্য যে কোনো লুজ পাউডার যা আপনার ত্বককে উজ্জ্বলতা দেয়, তার জন্য এই ব্রাশ ব্যবহৃত হয়।

৪. এঙ্গেলড ব্লাশ ব্রাশ

একটু লক্ষ্য করলেই দেখবেন গালের উঁচু হাড়ের জায়গাটা একদম সমান নয় বরং একটু ঢেউ খেলানো হয়ে থাকে।

গালে যেন ঠিক মতো ব্লাশ-অন লাগানোর  জন্য এই ব্রাশটি ব্যবহার করা হয়।

এটি গালের হাড়ের অংশে একেবারে ঠিক মতো বসে যায় এবং ব্লাশ-অন ব্যবহার করায়  বাড়তি কোনো ঝক্কি পোহাতে হয় না।

৫. কনসিলার ব্রাশ

কনসিলারের কাজ খুবই সূক্ষ্ম হয়। তাই কনসিলার ব্যবহারের ব্রাশটিও সূক্ষ্ম হয়ে থাকে।

চিকন ব্রাশের সাহায্যে ত্বকের বিভিন্ন অংশে বিভিন্ন শেডের মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত সাজ সৃষ্টি করা যায়  নিমিষেই !

৬. আইশ্যাডো ব্রাশ

চোখের পাতায় অপরূপ সৌন্দর্যের খেলা যেন সব নারীরই স্বপ্ন। তাই আইশ্যাডো ব্রাশেকে  বাড়তি বিবেচনা না করলে কি চলে?

মেকআপ ব্রাশের সেটে রয়েছে বিশেষ আকারের একটি আইশ্যাডো ব্রাশ যা আপনার চোখের সাজকে আরও সহজ এবং কম সময় সাপেক্ষ করে তুলবে।

৭. ব্লেন্ডিং ব্রাশ

এই ব্রাশের কাজ বোধ হয় মেকআপের ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি দক্ষতার পরিচয় দেয়।

আজ হয়তো আপনার ইচ্ছা করলো স্মোকি আই এর জন্য পুরো কালো রং ব্যবহার না করে বরং একটু বাদামি, সবুজ বা নীলের আভা মেশাতে।

কিন্তু কালো রঙের পাশে এই রঙগুলো কি একটু বেশিই উজ্জ্বল হয়ে থাকবে না? এই দুটি রঙকে মিশিয়ে চোখের সাজকে অনন্য মাত্রা দিতে আপনাকে সাহায্য করবে একটি ব্লেন্ডিং ব্রাশ!

একটু চওড়া ব্লেন্ডিং ব্রাশ আপনাকে ত্বকের বিভিন্ন অংশে মিক্সড হাই-লাইটার বা ব্লাশ-অন ব্যবহারেও সহায়তা করবে।

৮. স্মাজার ব্রাশ

কাজল দিয়ে যদি চোখের উপরে এবং নিচে ধোঁয়াশা করে মিশিয়ে দিতে ইচ্ছা করে (যা স্মাজার হিসাবে পরিচিত) তাহলে আপনার অবশ্যই একটি স্মাজার ব্রাশের প্রয়োজন হবে।

মনে রাখবেন, স্মাজার ব্রাশ এবং ব্লেন্ডিং ব্রাশ এক নয়। তাই একটি ব্রাশ দিয়েই অপরটির কাজ করতে যাবেন না।

এতে আপনার এতক্ষণ ধরে করে আসা সুন্দর সাজটি বিগড়ে যেতে পারে!

৯. আইলাইনার ব্রাশ

লিকুইড আইলাইনার ব্যবহারের যুগ এখন শেষ প্রায়। খুব কম মানুষই এখনও লিকুইড আইলাইনারের উপরে আসক্ত।

বাজারে এখন নানা ধরনের আইলাইনার জেল বা ক্রিম পাওয়া যায়। এগুলোর জন্য এক ধরনের বিশেষ চোখা প্রান্তের ব্রাশ পাওয়া যায় যার ময়াধ্যমে আপনি চোখে ফুটিয়ে তুলতে পারবেন ক্যাটস আই, কোরিয়ান স্টাইল কিংবা ক্লিওপেট্রা আইস!

১০. ল্যাশ এন্ড ব্রাউ ব্রাশ

চোখের সৌন্দর্য কেবল চোখের পাতায়ই নয় বরং চোখের এক জোড়া সুন্দর ভ্রু এবং চোখের পাপড়ির উপরেও নির্ভর করে।

সাজের সময় যখন আইব্রাউ পেনসিল ব্যবহার করবেন তখন দেখবেন প্রায়ই দুই চোখের সাজ দুই রকম দেখাচ্ছে ।

এর একমাত্র কারণ হলো চোখের ভ্রু আগেই ব্রাশ করে সোজা করে না নেয়া। এর জন্য আকার বুঝতে প্রায়ই ঝামেলায় পড়তে হয়।

এই একই ব্রাশ আপনি ব্যবহার করতে পারেন চোখের পাপড়ি আঁচড়ে নেবার জন্যও! ভাবতেই পারেন চোখের পাপড়ি আঁচড়ে নেবার কী আছে?

কিন্তু চোখে মাশকারা লাগানোর আগে একবার পাপড়ি আঁচড়েই দেখুন না! পরিবর্তন নিজেই বুঝতে পারবেন।

১১. ফ্যান ব্রাশ

হালকা এবং পাখা আকৃতির এই ব্রাশ আপনাকে ফাইনাল টাচ আপে সাহায্য করবে।

কোথাও প্রয়োজনের বেশি পাউডার পড়ে গেলে এই ব্রাশ দিয়ে আলতো করে ঝেড়ে নিন।

কে বলতে পারবে আপনার মেকআপে কোথাও ভুল ছিলো?

১২. লিপ ব্রাশ

সাজ কি সম্পূর্ণ হয়েছে? কিছু ভুলে যাচ্ছেন না তো? ভালো মতো আয়না দেখুন তো! ঠিক ধরেছেন।

ঠোঁটে এখনও লিপস্টিক দেয়াই হয়নি! চওড়া লিপস্টিক ব্যবহারে আপনি যদি অভ্যস্ত হতে না পারেন অথবা লিপগ্লসের ব্রাশটায় যদি একটু বেশিই গ্লস বারবার উঠে এসে আপনার সাজ নষ্ট করে দিয়ে থাকে তাহলে আপনার সবচেয়ে বড় ভরসা হতে পারে এই লিপ ব্রাশ।

এই ব্রাশটির ফাইবার কম, পাতলা এবং চিকন হয়ে থাকে যার কারণে আপনি সহজেই আপনার ঠোঁটে কাঙ্ক্ষিত সাজ ফুটিয়ে তুলতে পারেন।

তাহলে আর দেরি কেন? কিনে ফেলুন এই চমৎকার মেকআপ ব্রাশ সেটটি! ভাবছেন কোথায় পাবেন ভালো মানের এই ব্রাশ সেট?

কেয়ার মি তো আপনার পাশে আছেই আপনার দারপ্রান্তে কাঙ্ক্ষিত পণ্য সঠিক সময়ে পৌঁছে দেবার জন্য।

বিশেষ এই ব্রাশ সেটটি অর্ডার করতে পারেন এই লিংক  থেকে। এই ব্রাশ সেট রাখার জন্য আপনার বাড়তি কোনো বাক্সেরও প্রয়োজন হবে না।

ব্রাশ সেটের সাথেই আপনি পেয়ে যাচ্ছেন ভ্রমন বান্ধব আকর্ষণীয় একটি ব্রাশ হোল্ডার। এই ব্রাশ সেট কালো এবং গোলাপি দুটি রঙে পাওয়া যাবে।

The cookie settings on this website are set to 'allow all cookies' to give you the very best experience. Please click Accept Cookies to continue to use the site.
You have successfully subscribed!
This email has been registered